অনশনে মারা যাননি গোলাপ সরকার, গুজব ছড়িয়ে বিশৃঙ্খলার চেষ্টা অবৈধদখলচেষ্টাকারীদের। - Simanto Times
Latest:

Today: 18 Jan 2021 - 07:32:13 am

অনশনে মারা যাননি গোলাপ সরকার, গুজব ছড়িয়ে বিশৃঙ্খলার চেষ্টা অবৈধদখলচেষ্টাকারীদের।

Published on Wednesday, November 11, 2020 at 2:03 pm 94 Views
জুলহাজুল কবীর নবাবগঞ্জ, দিনাজপুর :
 দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে আশুড়ার বিল দখল করতে অবৈধ দখলদাররা স্থানীয় গোলাপ সরকারের (৭২) স্বাভাবিক মৃত্যুকে অনশনে মারা গেছে বলে মিথ্যে গুজব ছড়িয়ে ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছিলো। এ ঘটনায় মৃত গোলাপ সরকারের ছেলে মমিনুল ইসলাম নবাবগঞ্জ থানায় সাধারন ডায়েরি (জিডি) করেছেন। ডায়েরি  সূত্রে জানা যায়, মৃত গোলাপ সরকার উপজলোর হরিপুর(আদর্শ গ্রাম) র বাসিন্দা। তিনি বেশ কিছুদিন যাবৎ শারিরিক ও মানসিকভাবে অসুস্থ্য ছিলেন। এ অবস্থায় গত ৫ নভেম্বর নিজ বাড়িতে মারা যান গোলাপ সরকার। এরপরইআশুড়ার বিল অবৈধভাবে দখলকারীরা গুজব ছড়াতে থাকে যে, গোলাপ সরকার তাদের ক্রস ড্যাম সংষ্কারের বিরুদ্ধে মিথ্যা সাজানো অনশনে মারা গেছে। এ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদও প্রকাশ হয়। মৃত গোলাপ সরকারের ছেলে মমিনুল জানায় , তাঁর বাবার মৃত্যু নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে গুজব ছড়ানো হলেও কোন গণমাধ্যম কর্মী তাঁদের পরিবারের সাথে কথা বলেননি। নবাবগঞ্জ আশুড়ার বিল রক্ষার অন্যতম নেতা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক জিয়াউর রহমান জানান, বিল দখলকারীরা মানুষের স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে গুজব ছড়িয়ে এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা করছে। কিন্তু তাদের সেই অপচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। নবাবগঞ্জবাসী যে কোন মূল্য ঐতিহাসিক আশুড়ার বিল রক্ষায় বদ্ধ পরিকর। নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার জানান, নবাবগঞ্জের ঐতিহাসিক আশুড়ার বিল রক্ষায় অবৈধ দখলকারীদের যে কোন ধরনের অপচেষ্টা গুজব আইনগতভাবে মোকাবেলা করা হবে। আশুড়ার বিল ও শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যানের স্বপ্নদ্রষ্টা সাংবাদিক এস, এম আলমগীর জানান, আশুড়ার বিল অবৈধ ভাবে দখলের অপচেষ্টাকারীরা দীর্ঘ দুই বছরের বেশী সময়েও কোন বৈধতার কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। তাছাড়া তাদের অবৈধ দাবী তারা জলাশয়ে (বিলে) ধান চাষ করার জন্য বিভিন্ন  ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থেকে নবাবগঞ্জের উন্নয়নে বাধা সৃষ্টি করছে। সাংবাদিক মোঃ জুলহাজুল কবীর জানান,ঐতিহ্যবাহী আশুড়ার বিল ও শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যান আমাদের জাতীয় সম্পদ এই সম্পদ রক্ষা ররার দায়িত্ব আমাদের।
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *