Latest:

Today: 09 Nov 2019 - 09:18:33 pm

তানোরে কলেজ অধ্যরে ঘোড়া রোগ !

Published on Monday, July 29, 2019 at 4:45 pm 0 Views

simantotimes24

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি
রাজশাহীর তানোর পৌরসভা কারিগরি টেকনিক্যাল এ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট (বিএম) কলেজের অপ্রয়োজনীয় দৃষ্টিনন্দন ও রাজকীয় প্রধান ফটক নির্মাণ নিয়ে জনমনে নানামূখী আলোচনা-সমালোচনা ও মিশ্র প্রতিক্রিয় দেখা দিয়েছে। স্থানীয় অভিভাবক মহলের ভাষ্য, কলেজের অর্থ লোপাটের উদ্দেশ্যেই বিপুল অর্থ ব্যয়ে এমন অপ্রয়োজনীয় ফটক নির্মাণ করা হয়েছে। অনেকে বলছে, কোনো সাম্ভবত্যা যাচাই না করে ফাঁকা মাঠে বিপুল অর্থ ব্যয়ে এমন অপ্রয়োজনীয় দৃষ্টিনন্দন ও রাজকীয় ফটক নির্মাণ ‘বাঁশের চেয়ে কঞ্চি বড়’ ঘটনার মতো। আবার কেউ বলছে, অধ্যরে ঘোড়া রোগ অপ্রয়োজনে কষ্টার্জিত অর্থ ব্যয়।
স্থানীয়রা জানান, বিগত ২০০০ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে বিএনপি মতাদর্শী ও তানোর কলেজের সহকারি কেরানি ইলিয়াস আলী মৃধা তানোর পৌর সদরে কারিগরি কলেজ প্রতিষ্ঠা করে কেরানি থেকে অধ্য হয়েছেন। কিন্তু শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগে কলেজের উন্নয়নের নামে বিপুল অঙ্কের ডোনেশান নেয়া হলেও দীর্ঘদিনেও কলেজে কোনো উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। তারা বলেন, এখানো কলেজের মানসম্মত একাডেমিক ভবন ও সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। ফলে বৃষ্টির সময় ভবনের টিন চুয়ে পানি পড়ে, কলেজের সামনের মাঠ সমতল নয় ঝোঁপঝাড়ে ভরা একটু বৃষ্টিতেই কাঁদায় ম্যাচাকার অবস্থা এমনকি সীমানা প্রাচীর না থাকায় অনেক সময় কলেজ চত্ত্বর গোচরণ ভূমিতে পরিণত হয়। সচেতন মহলের প্রশ্ন যেখানে সীমানা প্রাচীরই নাই সেখানে বিপুল অর্থ ব্যয় করে অপ্রয়োজনীয় এমন দৃষ্টিনন্দন ফটক নির্মাণ কার স্বার্থে বা কি উদ্দেশ্যে। কলেজের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক বলেন, বরং এই অর্থ ব্যয় করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ শুরু করা যেতো অথবা একাডেমিক ভবন উন্নয়ন বা মাঠ সমতল করা হলে কলেজের পরিবেশ উন্নয়নের পাশাপাশি সকলের জন্যই অনেক ভাল হতো। স্থানীয় অভিভাবক মহলের কাছে এমন ফটক নির্মাণের কোনো ব্যাা নাই। এব্যাপারে কলেজ অধ্য ইলিয়াস আলী মৃধা সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কমিটির সীদ্ধান্ত মোতাবেক ফটক নির্মাণ করা হয়েছে, ধীরে ধীরে সীমানা প্রাচীরও নির্মাণ করা হবে। তিনি বলেন, যারা কলেজের ভাল চায় না তারাই এসব অপপ্রচার করছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *